অবাক কান্ড ! হার্ট অ্যাটাকে নীলগাইয়ের মৃত্যু ! - Vikaspedia

অবাক কান্ড ! হার্ট অ্যাটাকে নীলগাইয়ের মৃত্যু !

আবারও সীমান্ত পেরিয়ে দিনাজপুরে প্রবেশের পর উৎসুক জনতার হাতে আটকের পর একটি নীলগাই মারা যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার (১৬ মার্চ) বিরল উপজেলার কামদেবপুর সীমান্ত এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ বিষয়ে দিনাজপুর বনবিভাগের বিভাগীয় কর্মকর্তা বশিরুল আল মামুন বলেন, সীমান্ত পেরিয়ে একটি নীলগাই বিরলের কামদেবপুর এলাকায় প্রবেশ করে। পরে স্থানীয়রা ওই প্রাণীটিকে ধরার জন্য ধাওয়া দেয়। বন বিভাগের পক্ষ থেকে প্রাণীটিকে ধাওয়া না দেওয়ার জন্য মসজিদের মাইকে করে ঘোষণা দেওয়া হলেও কেউ কর্ণপাত না করেনি। পরে অসুস্থ অবস্থায় নীলগাইটিকে আটক করে স্থানীয়রা।

আমরা চিকিৎসা দেওয়ার কথা জানালেও বিজিবির সদস্যরা জানায় যে, তারা নীলগাইটিকে ক্যাম্পে নিয়ে যাবে। সীমান্ত এলাকা হওয়ার কারণে তাদের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা রয়েছে। এজন্য তারা প্রাণীটিকে ক্যাম্পে নিয়ে যায়। সেখানে নীলগাইটি মারা যায়। ধাওয়ার কারণে হার্ট অ্যাটাকে ওই নীলগাইটির মৃত্যু হয়েছে বলে জানান তিনি।

এর আগে, ২০১৮ সালের ৪ সেপ্টেম্বর ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার পটুয়া গ্রাম থেকে বিলুপ্তপ্রায় নারী একটি নীলগাই উদ্ধার করে রামসাগর জাতীয় উদ্যানের মিনি চিড়িয়াখানায় রাখা হয়। ২০১৯ সালের ২২ জানুয়ারি সব নওগাঁ জেলার মান্দার জোতবাজারে একটি পুরুষ নীলগাই ট্রাকে করে পাচার করে নিয়ে যাচ্ছিল।

পথে স্থানীয়দের হাতে আটক হয় প্রাণীটি। পরে বংশ বিস্তারের আশায় পুরুষ নীলগাইটিকে রামসাগর জাতীয় উদ্যাগে নারী নীলগাইয়ের সঙ্গে রাখা হয়। সঙ্গী পাওয়ার প্রায় এক মাস ৮ দিন পর চলতি বছরের ১৬ মার্চ বিকেলে রামসাগরের কৃত্রিম বনে দৌড়াদৌড়ি করার সময় ঘেরা দেওয়া নেটের ভেতর আটকে মারা যায় দেশের একমাত্র নারী নীলগাইটি।

এছাড়াও একই বছরের ১৭ এপ্রিল নওগাঁ জেলার পত্নীতলার নিমইল ইউনিয়নের কালুপাড়া সীমান্তে আরেকটি নীলগাই উদ্ধার হলে সেটিকেও রামসাগর জাতীয় উদ্যানে নিয়ে আসা হয়। প্রায় এক মাস পর ১৯ মে রামসাগরে রাখা ২টি পুরুষ নীলগাইয়ের মধ্যে নওগাঁ জেলার মান্দার জোতবাজার থেকে উদ্ধার হওয়া নীলগাইটি মারা গেলেও বিষয়টি গোপন রাখে রামসাগর জাতীয় উদ্যান কর্তৃপক্ষ। পরে ২০২০ সালের ১৯ আগস্ট রামসাগর জাতীয় উদ্যানে থাকা একমাত্র নীলগাইটিকে গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে নিয়ে যাওয়া হয়।