‘ওরা বাবার গলায় বোতলের খাপ ঢুকায়া মারছে’ - Vikaspedia

‘ওরা বাবার গলায় বোতলের খাপ ঢুকায়া মারছে’

শিশু আকাশ পিতার হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে দিনাজপুর-রংপুর মহাসড়কে দাঁড়িয়ে আহাজারি করে বলছে, ‘ওরা আমার বাবার গলায় বোতলের খাপ (কক) ঢুকায়া মারছে। আমার বাবাকে অনেক অত্যাচার করে মারছে তারা। আমার বাবাকে সারা রাত সেখানে (ঘটনাস্থল) ফেলে রাখছিল তারা। হাসপাতালে নিয়ে যাইয়ে ডাক্তার আমার বাবার গলা থেকে খাপ (কক) বাইর করছে। আমি তাদের শাস্তি চাই।’

এভাবে আক্ষেপ করে কথা বলছিল বন্ধুদের হাতে খুন হওয়া আব্দুর রশিদের আট বছর বয়সী শিশুপুত্র আকাশ।

শনিবার দুপুরে আব্দুর রশিদের হত্যাকারীদের বিচার দাবিতে দিনাজপুর সদর উপজেলার ১ নম্বর চেহেলগাজী ইউনিয়ন পরিষদের সামনে গোপালগঞ্জ বাজারে দিনাজপুর-রংপুর মহাসড়ক অবরোধ করে এলাকাবাসী। প্রায় এক ঘণ্টা অবরোধের পর পুলিশের আশ্বাসে স্থানীয়রা রাস্তা থেকে সরে যায়।

অবরোধে নিহতের ছোট ভাই খোরশেদ আলম অভিযোগ করে বলেন, ‘আমার ভাইকে হত্যার সঙ্গে তিনজন জড়িত ছিল। এরমধ্যে একজনকে পুলিশ শুক্রবার গ্রেফতার করেছে। আরো দুজন এখনো পলাতক। তারা অর্থশালী। তারা যেন পার না পেয়ে যায়। তাই আমরা সড়ক অবরোধ করেছি।’

নিহতের চাচা বলেন, ‘আমার ভাতিজাকে হত্যা করা হয়েছে। আজ প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করেছি। পুলিশ আমাদের আশ্বস্ত করেছে। আমরা সড়ক অবরোধ তুলে নিয়েছি। তবে মামলার অন্য আসামিদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি। আমরা হত্যাকারীদের ফাঁসি দাবি জানাচ্ছি।’

আরো পড়ুন: ফুলশয্যার খাটে অপেক্ষায় নতুন বউ, বর না এসে এলো ‘লাশ’

চেহেলগাজী ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার আমির আলী অভিযোগ করেন, এলাকাবাসী হত্যাকারীদের বিচার ও অন্য আসামিদের গ্রেফতারের দাবিতে সড়ক অবরোধ করেছিল। মাদকের কারণে এ হত্যার ঘটনা ঘটেছে। অথচ আশপাশে অনেক মাদক ব্যবসায়ী অবাধে মাদক বিক্রি করছে। মাদক বিক্রি ও ব্যবসায়ীদের ব্যাপারে প্রশাসনকে সতর্ক হতে হবে।

কোতোয়ালি থানার ওসি মোজাফ্ফর হোসেন বলেন, নতুন করে কোনো গ্রেফতার নেই। শনিবার দুপুরে কিছুক্ষণের জন্য এলাকাবাসী মহাসড়ক অবরোধ করেছিল। পরে আশ্বাসের প্রেক্ষিতে তারা অবরোধ তুলে নেয়।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার রাতে গোপালগঞ্জ বাজারের পাশে রানীগঞ্জ মোড়ে সাঁওতালপাড়ায় দেশীয় মদ খাওয়ার পর বড়ইল মোল্লাপাড়ার বাসিন্দা আব্দুর রশিদকে হত্যা করে একই এলাকার আশিকুর রহমান, রাশেদ ইসলাম, উজ্জল রায় ও ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর রিপন। পরে শুক্রবার ভোরে খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন তাকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

পরে দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় নিহতের বাবা মুসলিম আলী বাদী হয়ে চারজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। পরে কোতোয়ালি থানার পুলিশ মামলার প্রধান আসামি আশিকুর রহমানকে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হলে শনিবার দুপুরে দাফন সম্পন্ন হয়।