‘কঠোর ব্যবস্থা না নিলে মরণ ছাড়া গতি নেই’ - Vikaspedia

‘কঠোর ব্যবস্থা না নিলে মরণ ছাড়া গতি নেই’

নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যায় লঞ্চ ডুবির পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন মুন্সিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি মৃণাল কান্তি দাস ও নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) জায়েদুল আলম।

এর আগে রোববার (২০ মার্চ) দুপুরে চর সৈয়দপুরের আল আমিননগর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় এ প্রতিবেধন লেখা পর্যন্ত ছয়জনে। মৃত ৬ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে দুজন নারী, দুজন পুরুষ ও দুই শিশু রয়েছে। এর মধ্যে একজনের নাম জানা গেছে। তিনি হলেন জয়নাল ভূঁইয়া (৬০)। বাকিদের তাৎক্ষণিক নাম-পরিচয় জানা যায়নি। দুর্ঘটনায় হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

এসময় এসপিকে লক্ষ্য করে এমপি বলেন, এরা কোনো নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে যেভাবে চলাচল করে সে জন্য কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া দরকার। দ্রুত এ বিষয়ে আপনাদের কঠোর হতে হবে। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে মরণ ছাড়া গতি নেই। সংশ্লিষ্ট সবার সঙ্গে সমন্বয় করে এদের থামাতে হবে। এসময় এসপি তার সঙ্গে একমত পোষণ করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রায় ৭০ জন যাত্রী নিয়ে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় লঞ্চ টার্মিনাল থেকে মুন্সীগঞ্জ যাচ্ছিল এমএল আশরাফ উদ্দিন। পথে এমভি রূপসী-৯ নামে একটি কার্গোজাহাজ লঞ্চটিকে ধাক্কা দেয়। এতে লঞ্চটি মুহূর্তেই ডুবে যায়। এ সময় ১৫ থেকে ২০ যাত্রী সাঁতারে তীরে উঠতে সক্ষম হলেও বাকিরা নিখোঁজ রয়েছেন। তবে লঞ্চে ঠিক কতজন যাত্রী ছিলেন তা কেউ নিশ্চিত করতে পারেনি।

প্রত্যক্ষদর্শী ওমর ফারুক বলেন, জয়নাল হার্টের রোগী ছিলেন। লঞ্চ ডুবে যাওয়ার পর সাঁতারে তীরেও উঠেছিলেন। কিন্তু এর কিছুক্ষণ পরই তিনি মারা যান।

নারায়ণগঞ্জ নৌ পুলিশের এসপি মীনা মাহমুদা জানান, একটি জাহাজের ধাক্কায় লঞ্চটি ডুবে গেছে বলে আমরা নিশ্চিত হয়েছি। উদ্ধার কাজ চলছে।

বিআইডব্লিউটিএ’র উপ-পরিচালক (নৌ নিরাপত্তা বিভাগ) বাবু লাল বৈদ্য বলেন, একটি জাহাজের ধাক্কায় লঞ্চটি ডুবে গেছে। এখনও অনেকে নিখোঁজ রয়েছেন। উদ্ধারকারী দল ঘটনাস্থলে কাজ করছে।

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক আব্দুল্লাহ আল আরেফীন জানান, এ পর্যন্ত ৫ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আরও উদ্ধারে কাজ চলছে।