কোরআন মাজিদ নিয়ে মাদরাসায় ছোটেন তারা - Vikaspedia

কোরআন মাজিদ নিয়ে মাদরাসায় ছোটেন তারা

ফেসবুকের মাধ্যমে টাকা সংগ্রহ করে সেই টাকা দিয়ে কোরআন মাজিদ কিনে বিভিন্ন মাদরাসায় ছুটে চলেছেন সিরাজগঞ্জের সমাজকর্মী খ্যাত বাংলাদেশ পুলিশের বিশেষ শাখার (ডিএসবি) সদস্য শামীম রেজা।

এভাবে ১ হাজার কোরআন মাজিদ বিতরণ করতে চান বলে জানিয়েছেন তিনি। আর এসব কাজে সার্বিক সহযোগিতা করেছেন স্বেচ্ছাসেবী ইসমাইল হোসেন।

ফেসবুক বন্ধুদের অর্থায়নে শনিবার (১২ মার্চ) উল্লাপাড়া উপজেলার ঘিয়ালা বারুলাপীর মাদিনাতুল উলুম হাফিজিয়া মাদরাসায় ২০টি, ছয়বাড়িয়া কবরস্থান হাফিজিয়া মাদরাসায় ১৫টি ও সদর উপজেলার ধীতপুর আলাল রাবেয়া বশির মহিলা হাফেজিয়া মাদরাসা ও এতিমখানায় ২৭টি মিলিয়ে হাফিজিয়া মাদরাসার কোরআনের পাখিদের মাঝে ৬২টি কোরআন মাজিদ প্রদান করা হয়েছে।

বাংলাদেশ পুলিশের বিশেষ শাখার (ডিএসবি) সদস্য শামীম রেজা জানান, আমার পেশাগত কাজের পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক ব্যবহার করে মুমূর্ষু রোগীদের রক্ত সংগ্রহ, প্রতিবন্ধীদের হুইলচেয়ার ও অসহায়দের জন্য নিরাপদ পানির টিউবওয়েল সংগ্রহ করে দিতে স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করি।

হঠাৎই মনে হলো হাফিজিয়া মাদরাসায় যেহেতু গরিব মানুষদের সন্তানরা পড়াশোনা করে, তাই তাদের মাঝে কোরআন শরিফ দেওয়ার জন্য ফেসবুকে পোস্ট দিলে সেখানে বন্ধুদেরও ভালো সাড়া পাই। পরে অর্থ সংগ্রহ করে কোরআন শরিফ কিনে বিতরণ করা হয়।

তিনি জানান, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক বন্ধুদের অর্থায়নে সদরের বাগবাটি হাট নূরুন আলা-নূর হাফিজিয়া কওমি মাদরাসায় ২০টি, কালিয়া হরিপুর ইউনিয়নের দিঘলকান্দি হাফিজিয়া মাদরাসায় ২০টি, কামারখন্দ থানার মুগবেলাই বাগে জান্নাত ইসলামিয়া হাফিজিয়া মাদরাসায় ১৫টি, সলঙ্গা থানার তেলকুপি রানীনগর নুরানী হাফিজিয়া মাদরাসায় ৫০টি, সদরের একডালা দারুস সুন্নত নিজামিয়া হাফিজিয়া মাদরাসা ও এতিমখানা লিল্লা বোডিংয়ে ২০টি, মারকাজুল উলুম বালিকা মাদরাসায় ২০টি, রায়গঞ্জের রাবেয়া বসরী প্রি-ক্যাডেট মহিলা মাদরাসায় ৪০টি, সদরের মালশাপাড়া কবরস্থান মাদরাসায় ৮টি, রানীগ্রাম কোরআনিয়া হাফিজিয়া কাওমি মাদরাসায় ৭টি, রতনকান্দি ইউনিয়নের গোবিন্দ পোটল ভেন্নাবাড়ী আয়েশা সিদ্দিকা নূরানীয়া মহিলা হাফেজি মাদরাসায় ১৫টি, জোবাইদা আদর্শ মহিলা মাদরাসায ১৫টি কোরআন শরিফ বিতরণ করা হয়।

এছাড়াও রায়গঞ্জের গোদগতি ইত্তেবাউস সুন্নাহ হাফিজিয়া কাওমি মাদরাসায় ৩০টি, উম্মাহাতুল মু’মিনিন (রা) মহিলা মাদরাসায় ৭টি, সদরের চর হরিপুর মসজিদভিত্তিক মাদরাসায় ১০টি, গুণের গাতি আল-জামিয়াতুল মহিলা হাফিজিয়া মাদরাসায় ৫টি, দারুল কুরআন হাফিজিয়া মাদরাসায় ১০টি, শহীদগঞ্জ তালিমুদ্দিন হাফিজিয়া মাদরাসায় ৯টি, রহমতগঞ্জ কবরস্থান ফোরকানিয়া হাফিজিয়া মাদরাসায় ৩০টি, সিরাজগঞ্জ স্টেডিয়াম রোডের তাহফিজুল কোরআন মডেল মাদরাসায় ৫টি, ভাটপিয়ারী হাফিজিয়া মাদরাসায় ১০টিসহ কালিয়াহরিপুর ইউনিয়নের মিফতাহুল কাঁচাকোবা কবরস্থান কওমি হাফিজিয়া মাদরাসায় ২০টি ও শিয়ালকোল ইউনিয়ন শ্যামপুর গ্রামে উম্মে হাবিবা মহিলা মাদরাসায় ৫টি এবং আরও কয়েকটি মাদরাসায় কোরআন মাজিদ দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আমাকে এসব কাজে আরও সহযোগিতা করেছেন স্বেচ্ছাসেবী আব্দুল আলিম শোয়েব মোহাম্মদ, আলমগীর হোসেন ও আব্দুল মমিন কলি।