চাকরি দেওয়ার নামে গোপন আস্তানায় নিয়ে তরুণীকে রাতভর গণধ’র্ষণ, ভিডিও ধারণ - Vikaspedia

চাকরি দেওয়ার নামে গোপন আস্তানায় নিয়ে তরুণীকে রাতভর গণধ’র্ষণ, ভিডিও ধারণ

আকর্ষণীয় বেতনে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ঢাকার ধামরাইয়ে এক তরুণীকে গোপন আস্তানায় নিয়ে রাতভর পালাক্রমে ধ’র্ষণ করেছে ৬ বখাটে।
মঙ্গলবার ভোরে ধামরাই উপজেলার সোমভাগ এলাকার চরডাউটিয়া গ্রাম থেকে সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডের মেম্বারের ছেলেসহ ৫ ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এক ধর্ষক পলাতক রয়েছেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন ঢাকার ধামরাই থানার চরডাউটিয়া গ্রামের মো. বদরুউদ্দিনের ছেলে শহীদুর রহমান শহীদ, আব্দুর রাজ্জাক, বানেশ্বর গ্রামের বাসিন্দা ও সংরক্ষিত নারী মেম্বার ছালেহা আক্তারের ছেলে সোহরাব হোসেন, ঝালকাঠির নলছিটি থানার গোপালপুর গ্রামের মৃত আব্দুল মান্নান মিয়ার ছেলে মনিরুল ইসলাম মনির ও বিকাশ। আসামিরা সবাই চরডাউটিয়া এলাকায় বসবাস করে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার সকালে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের হয়েছে ওই ৬ ধর্ষকের নামে। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ১০ দিনের রিমান্ড প্রার্থনা করে ওই ৬ জনকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

জানা যায়, মানিকগঞ্জ জেলার এক তরুণী চাকরি নেয়ার জন্য সাভার উপজেলার আশুলিয়া থানার ডেন্ডাবর নতুনপাড়া এলাকায় রুম ভাড়া নিয়ে বসবাস করেন। কোথাও তিনি চাকরি না পেয়ে সোমবার বেলা ১১টার দিকে ধামরাইয়ে আসেন। সারাদিন বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠানের গেটে ঘুরেও চাকরি পাননি। ফলে হতাশ হয়ে বিকাল ৫টার দিকে তিনি চর ডাউটিয়া এলাকার দীপ টেক্সটাইল মিল এলাকায় যান।

এ সময় চর ডাউটিয়া গ্রামের বদরুদ্দিনের ছেলে শহীদুর রহমান শহীদ ও ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার গোপালপুর গ্রামের মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে মনিরুল ইসলাম মনির তাকে আকর্ষণীয় বেতনে চাকরি দেওয়ার কথা বলে তাদের গোপন আস্তানায় নিয়ে যায়। এরপর রাত ৯টার দিকে শহীদ কয়েকজন লোক নিয়ে আস্তানায় প্রবেশ করে ৬ বখাটে মিলে তাকে পালাক্রমে ধ’র্ষণ ও ধ’র্ষণের ভিডিও চিত্র ধারণ করে। এতে সে সংজ্ঞা হারিয়ে ফেললে ধ’র্ষণকারীরা তাকে ওই আস্তানার পাশে ফেলে রেখে চলে যায়।

রাত ৩টার দিকে স্থানীয় লোকজন এ স্থান দিয়ে যাওয়ার সময় তার গোঙানির শব্দ শুনে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন। এরপর তার সংজ্ঞা ফিরে আসলে এ ব্যাপারে ধামরাই থানায় ওই ধ’র্ষকদের নামে অভিযোগ দায়ের করা হয়।

ধামরাই থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) নির্মল কুমার দাস বলেন, চাকরি দেওয়ার কথা বলে ওই তরুণীকে গণধ’র্ষণ করে ওই সংঘবদ্ধ ধ’র্ষকরা। এ ব্যাপারে থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে ওই ধ’র্ষকদের নামে। অভিযান চালিয়ে ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।