চুল কেটে এসে খাওয়া হলো না ভাত, ছেলের ছবি হাতে কাঁদছেন মা - Vikaspedia

চুল কেটে এসে খাওয়া হলো না ভাত, ছেলের ছবি হাতে কাঁদছেন মা

আম্মু, আমি চাচার সঙ্গে চুল কাটতে যাই। চুল কেটে এসে ভাত খাবো। তুমি আমার জন্য ভাত রান্না করে রেখো। এভাবেই কাঁদতে কাঁদতে বিলাপ করছিলেন পাঁচ বছর বয়সী আনাসের মা সুমাইয়া আক্তার। একমাত্র ছেলেকে হারিয়ে পাগলপ্রায় তিনি। ছেলের ছবি ও কাপড় জড়িয়ে কাঁদছেন তিনি।

শুক্রবার দুপুরে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার ময়নামতি ইউনিয়নের সৈয়দপুর সাহদিলাবাগ এলাকায় প্রাইভেটকারের চাপায় নিহত হয় শিশু আনাস। সে একই এলাকার বিল্লাল হোসেনের ছেলে।

একই ঘটনায় রবিউল নামে আরো এক কিশোর নিহত হন। ১৬ বছর বয়সী রবিউল সাহদিলাবাগ এলাকার কামাল হোসেনে ছেলে।

নিহত আনাসের মা সুমাইয়া আক্তার বলেন, দুপুর ১২টার দিকে ৩০ টাকা নিয়ে চাচার সঙ্গে চুল কাটতে যায় আনাস। সকালে চা আর বিস্কুট খেয়েছিল। যাওয়ার আগে জিজ্ঞেস করল চুলের কি কাটিং দেবে। নিজের পছন্দ মতো চুল কাটতে বলেছিলাম। পছন্দ মতো ছেলের চুল কাটা হলো ঠিকই, কিন্তু বাড়ি ফিরল লাশ হয়ে।

স্বজনরা জানান, দুপুরে বাড়ি থেকে আধা কিলোমিটার দূরে সৈয়দপুর এলাকায় মহাসড়কের পাশে একটি সেলুনে চুল কাটতে যায় ববিউল, আনাস, বুলু মিয়ার ছেলে হেলাল ও ইউনুস মিয়ার ছেলে কাইয়ুম। চুল কেটে বাড়ি ফেরার পথে একটি প্রাইভেটকার তাদের চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই রবিউল ও আনাস নিহত হন। গুরুতর আহত হেলাল কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।