জ্যোতিষীর পরামর্শে জ্যোতিষ বেচেই ইঞ্জিনিয়ারের দৈনিক আয় ৪১ লাখ! - Vikaspedia

জ্যোতিষীর পরামর্শে জ্যোতিষ বেচেই ইঞ্জিনিয়ারের দৈনিক আয় ৪১ লাখ!

ভারতে জ্যোতিষের প্রতি আস্থা রয়েছে বড় অংশের মানুষের। ইঞ্জিনিয়ার পুনীত গুপ্ত এসব বিশ্বাস করতেন না।

কিন্তু জীবনের এক সংকটময় মুহূর্তে বন্ধুর অনুরোধে গিয়েছিলেন এক জ্যোতিষীর কাছে। সেখানেই জ্যোতিষ ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন ইঞ্জিনিয়ার নয়, ব্যবসায়ী হিসেবেই সাফল্য পাবেন তিনি।

পরে জ্যোতিষীর কথা মতো জ্যোতিষনির্ভর ব্যবসা শুরু করেন। তৈরি করেন জ্যোতিষ বিষয়ক এক ওয়েবসাইট। গত চার বছরে সেই ওয়েবসাইট ভিজিট করেছেন দুই কোটি মানুষ। আর সেখান থেকেই এখন পুনীতের দৈনিক আয় ৪১ লাখ টাকারও বেশি।

মুম্বাইয়ের একটি সংস্থায় ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজ করা পুনীতের চাকরিজীবন টলোমলো হয়ে যায় ২০১৫ সালের দিকে। দিন কাটছিল হতাশায়। তখনই এক সহকর্মী বন্ধু পুনীতের উদ্বেগের কথা জানতে পেরে তাকে জ্যোতিষীর শরণাপন্ন হওয়ার পরামর্শ দেন। কিছুটা জোর করেই এক নারী জ্যোতিষীর কাছে নিয়ে যান পুনীতকে।

শিক্ষিত যুবক হয়ে কীভাবে জ্যোতিষীর কাছে যাবেন তা নিয়ে প্রথমে কুণ্ঠায় ছিলেন পুনীত। ভবিষ্যৎ গণনা করে জ্যোতিষী জানিয়েছিলেন, খুব তাড়াতাড়ি চাকরি ছেড়ে একটি আইটি স্টার্টআপ খুলবেন পুনীত। সঙ্গে এক বন্ধুও থাকবেন।

কিন্তু বছর দুয়েক পরে সেই বন্ধু সঙ্গ ছাড়ায় বন্ধ হয়ে যাবে স্টার্টআপ। এরপরে পুনীত আরও একটি স্টার্টআপের উদ্যোগ নেবেন এবং সাফল্য পাবেন। পুনীত তখন ভবিষ্যদ্বাণী বিশ্বাস না করলেও চাকরিটা ছেড়ে দেন।

কিন্তু পরে সত্যি সত্যিই পুনীত একটি স্টার্টআপ গড়ে তোলেন এক বন্ধুকে সঙ্গী করে। তারপরে সেই ব্যবসা বেশ চালু হওয়ার পরে তা বন্ধ হয়ে যায় আর সেটাও ওই বন্ধু সঙ্গ ছেড়ে দেওয়ায়। এরপরে নতুন স্টার্টআপ পুনীতের— জ্যোতিষ বিষয়ক ওয়েবসাইট।

সেটাও আবার ওই জ্যোতিষীর পরামর্শেই। তিনিই ভারতীয় সংস্কৃতি নির্ভর কিছু করতে বলেছিলেন পুনীতকে। এখন সেই ওয়েবসাইট নাকি বিশ্বের এক নম্বর হওয়ার পথে ছুটছে। বর্তমানে পুনীতের সংস্থায় কাজ করেন আড়াই হাজার জ্যোতিষ।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা