দুলাভাইকে বিয়ে করলেন শ্যালিকা, একসঙ্গে ঘর করতে রাজি বড় বোন - Vikaspedia

দুলাভাইকে বিয়ে করলেন শ্যালিকা, একসঙ্গে ঘর করতে রাজি বড় বোন

শিরোনাম শুনে অবাক হওয়ার কিছু নেই! চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা ঘটেছে পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলায়। যেখানে বড় বোনের স্বামী সম্পর্কে দুলাভাইকে বিয়ে করেছেন ছোট বোন। শনিবার (২৬ জানুয়ারি) উপজেলার সদর ইউনিয়নের কাঁঠালিয়া এলাকা এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, বড় বোনের স্বামীর নাম সুজিত গাইন। তিনি পেশায় একজন ডেকোরেটরের ব্যবসায়ী। ৫ বছর তার সঙ্গে উপজেলার ঘোপেরখাল গ্রামের কালিপদ সিকদারের

মেয়ে রূপালি গাইনের (২৫) বিয়ে হয়। এ সংসার জীবেন তাঁদের দুই সন্তানও হয়। প্রথম সন্তানের বয়স ৪ বছর এবং দ্বিতীয় সন্তানের বয়স ২ বছর। সম্প্রতি আবারও তিনি তার শ্যালিকা অর্থাৎ প্রথম স্ত্রীর আপন ছোট বোন স্বর্ণালীকে (১৮) বিয়ে করেন। গত ২৬ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় বিয়ের পর একই ঘরে সংসার পেতেছেন সুজিত গাইন।

রূপালি গাইনের ভাই জয়দেব সিকদার বলেন, ‘সুজিত গাইনের সঙ্গে আনুমানিক ৫ বছর আগে আমার মেজো বোনের বিয়ে দেই। সেই সুবাদে আমার ছোট বোন ভগ্নিপতির বাড়িতে থেকে পড়াশোনা করত। ভগ্নিপতির বাড়িতে থাকায় আস্তে আস্তে স্বার্নালীর সঙ্গে সুজিতের প্রেম ভালোবাসা সৃষ্টি হয়। আমরা জানতে পেরে আমার বোনকে আমাদের বাড়িতে নিয়ে যাই। পরবর্তীতে স্বার্ণালীকে খুঁজে না পাওয়ায় আমার বাবা নাজিরপুর থানায় ভগ্নিপতি সুজিত গাইনের নামে অভিযোগ করেন।’

এ বিষয়ে সুজিত গাইনের প্রথম স্ত্রী রূপালী গাইনের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, ‘এ বিয়ে আমি মেনে নিয়েছি। আমার ছোট বোনকে নিয়ে একই ঘরে সংসার করব। আমার কোনো আপত্তি নাই।’ সুজিত গাইন জানান, হঠাৎ করেই ভালো লাগা থেকেই এই বিয়ে করেছি। তবে আমার প্রথম স্ত্রী মেনে নিয়েছে বিষয়টি। এখন আমি দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে একসঙ্গে ঘর করব।

সুজিত গাইনের কাকা গজেন গাইন বলেন, ‘তারা বিবাহ করেছে শুনেছি কিন্তু আনুষ্ঠানিকভাবে এখনো বিয়ে হয় নাই, দিন তারিখ দেখে আমরা আনুষ্ঠানিক বিয়ের তারিখ ধার্য করব।’

এ বিষয়ে নাজিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হুমায়ুন কবির বলেন, ‘মেয়ের বাবা একটা অভিযোগ দিয়েছে। আমরা অভিযোগের ভিত্তিতে উভয়কে থানায় হাজির করি। তারা উভয়ই এ বিয়ে মেনে নিয়েছে এবং ঘর-সংসারও করবে। কেউ কোনো মামলা করবে না।’