পরাজিত হলেও ফের নির্বাচনে অংশ নিতে চান সেই ভিক্ষুক নাসিদা - Vikaspedia

পরাজিত হলেও ফের নির্বাচনে অংশ নিতে চান সেই ভিক্ষুক নাসিদা

ভোলার লালমোহন উপজেলার ববদরপুর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন ভিক্ষুক নাসিদা বেগম। কিন্তু সেই নির্বাচনে বিপুল ভোটে পরাজিত হলেও ফের নির্বাচন করতে চান নাসিদা বেগম।

যদিও তার জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে তবুও মনোবল হারাননি তিনি। আগামীতেও করতে চান জনসেবা। শেষবারের মতো নির্বাচনে অংশ নিয়ে জয়ী হওয়ার স্বপ্ন দেখেন তিনি। জনপ্রতিনিধি হয়ে জনসেবা করার জন্য আগামী নির্বাচনেও প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ‘ভাইরাল’ হওয়া এই নারী প্রার্থী।

এদিকে নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার একদিন পরই তাকে দেখা গেছে সেই পুরনো পেশায়। বৃদ্ধ বয়সে হাতে ব্যাগ ঝুলিয়ে সাহায্যের জন্য মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরতে দেখা গেছে তাকে। পুরনা পেশায় ফিরে গেলেও আগামী নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি। এমনটি জানালেন পরাজিত প্রার্থী নাসিদা বেগম।

স্থানীয় সূত্র জানায়, গত সোমবার (২১ মার্চ) অনুষ্ঠিত হওয়া লালমোহন উপজেলার বদরপুর ইউনিয়নে সংরক্ষিত ১, ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ড থেকে নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছিলেন নাসিদা বেগম। তিনি পেশায় ভিক্ষুক হলেও দ্বিতীয়বারের মতো প্রার্থী হন। কিন্তু বিপুল পরিমাণ ভোটের ব্যবধানে শেষ পর্যন্ত হেরে যান তিনি। নির্বাচনে ‘তালগাছ’ প্রতীকে তিনি পেয়েছিলেন ১৮৪ ভোট। ছয়জন প্রার্থীর মধ্যে প্রাপ্ত ভোটের হিসেবে তার অবস্থান চতুর্থ। ওই ওয়ার্ডে বিজয়ী হয়েছেন বই প্রতীকের প্রার্থী খাদিজা বেগম। তিনি পেয়েছেন ১৫৮২ ভোট।

নাসিদা বাংলানিউজকে জানান, আমি জয়লাভ করতে পারিনি। কিন্তু জনগণের ভালোবাসা ও সমর্থন পেয়েছি, সে কারণে ১৮৪ ভোট পেয়েছি। যারা আমাকে ভোট দিয়েছেন তারা সবাই আমাকে ভালোবাসেন। আমি আগামীতে নির্বাচন করতে চাই। জনসেবা করতে চাই।

তিনি বলেন, জনপ্রতিনিধিরা জয়ী হওয়ার পর কোনো প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেন না, কাই জেদ ও ক্ষোভ করেই প্রার্থী হয়েছিলাম। আগামীতেও হবো।

লালমোহন উপজেলার বদরপুর ২ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা নাসিদা বেগমের স্বামী ৫ বছর আগে ফজলু খাঁ মারা যান। তাদের ২ ছেলে ও ২ মেয়ে রয়েছে। ছেলেরা দিনমজুরের কাজ করেন আর মেয়েরা ঢাকায় অন্যের বাড়িতে গৃহপরিচিকার কাজ করেন।

নির্বাচনে প্রার্থী হয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছিলেন ভিক্ষুক নাসিদা। তাকে নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। মানবিক দৃষ্টিতে তার পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন অনেকে।

লালমোহন উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আমির গাজী খসরু বলেন, নাসিদা বেগমের জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে। তিনি বলেন, সুষ্ঠুভাবে লালমোহনের বদরপুর ইউনিয়নের ভোটগ্রহণ হয়েছে। নির্বাচন নিয়ে কারো কোনো অভিযোগ ছিল না।