প্রেমের ফাঁদে ফেলে কলেজ ছাত্রীর অশ্লীল ভিডিও ধারণ - Vikaspedia

প্রেমের ফাঁদে ফেলে কলেজ ছাত্রীর অশ্লীল ভিডিও ধারণ

নোয়াখালীর সদর উপজেলায় প্রেমের ফাঁদ পেতে এক কলেজ ছাত্রীর অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে প্রতারণার অভিযোগে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১।

গ্রেফতারকৃত মো. জুয়েল (২২) সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর গ্রামের সেকান্দার সর্দার বাড়ির মোহাম্মদ হোরন মিয়ার ছেলে এবং সে বেগমগঞ্জের রাজগঞ্জ ইউনিয়নের মনপুরায় অবস্থিত আপন আর্থ সামাজিক উন্নয়ন সংস্থাতে ক্রেডিট অফিসার হিসেবে কর্মরত আছে।

রোববার (১৩ মার্চ) সন্ধ্যা ৬টার দিকে বেগমগঞ্জের রাজগঞ্জ ইউনিয়নের মনপুরা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১১। একই দিন রাত ১০টার দিকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি ও বিষয়টি বিডি২৪লাইভ কে নিশ্চিত করেন র‌্যাব-১১,সিপিসি-৩, নোয়াখালী ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খন্দকার মো. শামীম হোসেন।

তিনি আরোও জানান, ভুক্তভোগী এইচএসসি পড়ুয়া কলেজ ছাত্রী রাহেলা (ছদ্মনাম) (১৮) ও আসামির ছোট বোন শাহিনুর একই ক্লাসে পড়াশোনা করে। পড়াশোনার সুবাদে আসামির বোন ভিকটিমের বাড়িতে প্রায় সময় আসা-যাওয়া করতো।

শাহিনুরের মাধ্যমে ভিকটিমের সাথে আসামির পরিচয় হয়। একপর্যায়ে ওই কলেজ ছাত্রীর সাথে ভূয়া প্রেমের সম্পর্ক স্থাপন করে তার অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে জুয়েল। এরপর ভিকটিমকে তার সাথে দৈহিক সম্পর্ক চালিয়ে না গেলে ওই অশ্লীল ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়।

গত দুই বছর যাবত এ সম্পর্ক চলছিল। লজ্জায় নিরূপায় হয়ে ভিকটিম আত্নহত্যার চেষ্টা করেছিল।অন্যদিকে জুয়েল গ্রেফতার এড়াতে তার কর্মস্থলের ঠিকানা গোপন রেখে বিভিন্ন স্থানে রাত্রী যাপন করত। সে একজন অভ্যাসগত যৌন অপরাধী।

পর্নোগ্রাফি প্রতারণার আলামত হিসাবে গ্রেফতারকৃত আসামির থেকে একটি মোবাইল সেট এবং সেটের মধ্যে সুরক্ষিত কিছু অশ্লীল ভিডিও, অশ্লীল ভিডিও ১ টি মেমোরী কার্ড ও কথোপকথনের ২ টি সীম কার্ড উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামির বিরুদ্ধে সুধারাম থানায় পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা দায়েরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।