বাণিজ্যমন্ত্রীকে একহাত নিলেন মাহমুদুর রহমান - Vikaspedia

বাণিজ্যমন্ত্রীকে একহাত নিলেন মাহমুদুর রহমান

টিসিবির পণ্য বিক্রি সম্পর্কে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশির সমালোচনা করেছেন নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না। তিনি বলেন, ‘খোদ বাণিজ্যমন্ত্রী বলেছেন- টিসিবির লাইনে প্যান্ট শার্ট পরে মধ্যবিত্ত, স্বচ্ছল মানুষ পণ্য নিচ্ছে।

ওনার এ বক্তব্যের কিছুদিন পর দেখলাম, চট্টগ্রামে টিসিবির পণ্যের ট্রাকের পেছনে শদুয়েক মানুষ দৌড়াচ্ছে। এগুলো দুর্ভিক্ষের সিনেমায় দৃশ্য হিসেবে দেখানো যায়। এ রকম করুণ দৃশ্য সবখানে। পাঁচ থেকে ছয়ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকে মানুষ পণ্য পায় না।’

মঙ্গলবার (২৯ মার্চ) রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) ঢাকা মহানগর কমিটির ‘দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি জনদুর্ভোগ ও করণীয়’ শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় বাণিজ্যমন্ত্রীকে একহাত নিয়েছেন এই নাগরিক ঐক্যের সভাপতি। মন্ত্রীর উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘দিস ইজ আ স্টুপিড মিনিস্টার। এরকম অনেক স্টুপিড এ মন্ত্রণালয়ে আছেন।

তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না কেন? আমি স্টুপিড বলার সাহস পেলাম। জানি না, মামলা করে কি না। আমি এগুলোর কেয়ার করি না। কিন্তু সরকারের সম্পূর্ণরূপে মুখ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘মন্ত্রীরা বলেন- জিনিসপত্রের দাম বেড়েছে, অসুবিধা কী, জনগণের ক্রয়ক্ষমতা বেড়েছে তিনগুণ। তিনগুণ ক্রয়ক্ষমতা বাড়লে কি মানুষ টিসিবির ট্রাকের পেছনে লাইন দেয়? মানুষ তো ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে যাবে বা দেশের বাইরে যাবে।’ মান্না বলেন, ‘দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির জন্য যারা বলে সিন্ডিকেট সব করছে, সিন্ডিকেটের কথা বলে সরকারকে আড়াল করা হচ্ছে। সবচেয়ে বড় সিন্ডিকেট এ সরকার।’

নাগরিক ঐক্যের সভাপতি বলেন, ‘বছরে দুই লাখ কোটি টাকা বিদেশে পাচার হয়। আর বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, আমরা সম্প্রসারণমূলক মুদ্রানীতি করছি। গত ১৩ বছর ধরে কোনো ভোট হয়নি। এ সরকার ভোট ডাকাতি করে নিয়ে যায়, টাকা তো ডাকাতি করবেই। যত ডাকাত সব এক জায়গায়। এই ডাকাতরা মিলে ক্ষমতায় থাকার জন্য যা যা করা দরকার করছে।’