ব্যালন ডি'অরের নিয়মে ৪ পরিবর্তন - Vikaspedia

ব্যালন ডি’অরের নিয়মে ৪ পরিবর্তন

পেশাদার ফুটবলের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ পুরস্কার ব্যালন ডি’অরের নিয়মে ৪টি পরিবর্তন আনা হয়েছে। পরিবর্তনগুলো ২০২২ সংস্করণ থেকেই বাস্তয়ায়ন করা হবে।

আজ শুক্রবার এমনটাই জানিয়েছে ফরাসি সংবাদমাধ্যম ‘এল একুইপে’।

২০২১ সংস্করণ পর্যন্ত পুরস্কারের যোগ্য খেলোয়াড় বাছাই করতে জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর, অর্থাৎ এক বছরের পারফরম্যান্সকে ভিত্তি ধরা হতো। কিন্তু এখন থেকে আর বছর নয়, পুরো এক মৌসুমের (আগস্ট থেকে জুলাই) পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে দেওয়া হবে ব্যালন ডি’অর। ফলে পরের সংস্করণে যারা ভোট দেবেন তাদেরকে চলতি বছরের (৬ থেকে ৩১ জুলাই) ওমেন্স ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপকেও হিসাবের মধ্যে ধরতে হবে। কিন্তু বাদ যাবে ২০২২ কাতার বিশ্বকাপ।

গত বছর প্রতি বছর ফরাসি ক্রীড়া সাময়িকী ফ্রঁস ফুতবোল (France Football) কর্তৃক প্রদান করা পুরস্কারটি বগলদাবা করেছিলেন পিএসজির আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড লিওনেল মেসি। এবার নিয়ে রেকর্ড সাতটি ব্যালন ডি’অর জিতেছেন তিনি। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের পর্তুগিজ উইঙ্গার ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো পুরস্কারটি হাতে নিয়েছেন ৫ বার। কিন্তু এবার বিশ্বকাপ হিসাবের বাইরে রাখায় মেসির পক্ষে পুরস্কার জেতা কঠিন হয়ে যাবে। কারণ এরইমধ্যে তার দল পিএসজি চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলো থেকেই বিদায় নিয়েছে। লিগ ওয়ানেও ছন্দ খুঁজে ফিরছেন তিনি।

দ্বিতীয় পরিবর্তন এসেছে সিদ্ধান্ত গ্রহীতার ভূমিকায়। এতদিন দুই সংবাদমাধ্যম ফ্রান্স ফুটবল ও এল একুইপে মিলে ব্যালন ডি’অরের জন্য শীর্ষ ৩০ জনের নাম বাছাই করতো। কিন্তু এখন থেকে আরও কয়েকজন বিশেষজ্ঞ এখন যুক্ত হবেন। তাদের মধ্যে আছেন চেলসির কিংবদন্তি দিদিয়ের দ্রগবা। সঙ্গে থাকবেন আরও চার প্রখ্যাত ক্রীড়া সাংবাদিক।

এতদিন ব্যালন ডি’অরের ভোটাভুটিতে ১৭০ দেশের প্রতিনিধিরা অংশ নিতেন। কিন্তু এখন থেকে ফিফা র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষ ১০০ দেশ (নারী ফুটবলে ৫০টি দেশ) ভোট দিতে পারবে। অর্থাৎ বাংলাদেশের মতো র‍্যাংকিংয়ে পিছিয়ে থাকা দেশগুলোর পক্ষে ভোট দেওয়ার উপায় থাকবে না। এছাড়া ভোটের ক্ষেত্রে খেলোয়াড়দের ব্যক্তিগত পারফরম্যান্স বিবেচনায় নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। দলীয় পারফরম্যান্সও বিবেচনার সুযোগ থাকছে। , কিন্তু ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সের পর।