মামাতো বোনকে বিয়ে, স্বামীকে মাদক দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে নিজেই আটক! - Vikaspedia

মামাতো বোনকে বিয়ে, স্বামীকে মাদক দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে নিজেই আটক!

পুরনো কাপড় ব্যবসায়ী মো.সোহেল। বিয়ে করেছেন ৬ বছর হলো।

তাদের একটি সন্তানও আছে। দাম্পত্য জীবন সুন্দরই কাটছিল। কিন্তু হঠাৎ করে সোহেল তার প্রথম স্ত্রী নাসরিন বেগমের (২২) অনুমতি ছাড়া দ্বিতীয় বিয়ে করে বসেন। এতেই ক্ষুব্ধ হোন তার স্ত্রী নাসরিন বেগম। ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটাতে গিয়ে স্থানীয় এক মাদক ব্যবসায়ীর সহায়তায় বাড়িতে হেরোইন রেখে কৌশলে পুলিশে খবর দেন তিনি।

এ ঘটনায় রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশ ওই বাড়িতে অভিযানে যায়। কিন্তু এরপর বেরিয়ে আসে উল্টো তথ্য। সবার সামনে নাসরিন বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে ডিবি পুলিশ। এ সময় বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। সেটি হলো নিজের মামাতো বোনকে দ্বিতীয় বিয়ে করায় ক্ষোভে ফুঁসতে থাকেন নাসরিন বেগম।

এরপর স্বামীকে উচিত শিক্ষা দিতে ভেতরে ভেতরে ফন্দি আাঁটেন। নিজের স্বামীকে ফাঁসানোর জন্য স্থানীয় এক মাদক ব্যবসায়ীর সঙ্গে যোগসাজশে নিজেই বাড়িতেই হেরোইন নিয়ে আসেন।

জিজ্ঞাসাবাদের এই কথা জানার স্বামীকে রেখে তাকেই আটক করে নিয়ে যায় ডিবি পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৫ মার্চ) দুপুরে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. আরেফিন জুয়েল এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, সোমবার (১৪ মার্চ) সন্ধ্যার দিকে রাজশাহী মহানগরীর চন্দ্রিমা থানাধীন আসাম কলোনীর বউবাজার এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটেছে। পরে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) হাতে আটক হন নাসরিন।

রাজশাহী মহানগর ডিবি পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. আরেফিন জুয়েল বলেন, দীর্ঘ ছয় বছর ধরে নাসরিন বেগম ও মো. সোহেল এক সঙ্গে সংসার করেছেন। তবে এরই মধ্যে নাসরিনের অনুমতি ছাড়াই তারই (প্রথম স্ত্রীর) মামাতো বোনকে বিয়ে করেন সোহেল। এতে রাগের বশবতী হয়ে স্থানীয় এক মাদক ব্যবসায়ী রুবেলের দ্বারা প্ররোচিত হয়ে ঘরে ১০ গ্রাম হেরোইন রেখে খবর দেন গোয়েন্দা পুলিশে। তথ্য পাওয়ার পর তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে মাদক উদ্ধার করে।

তিনি আরো বলেন, অভিযুক্ত সোহেল ধূমপান পর্যন্ত করেন না। এছাড়া অন্য কোনো ধরনের মাদক গ্রহণ করে না বলে জানা যায়। এতে আমরা মাদকের বিষয়ে তার স্ত্রীকেই সন্দেহ করি। পরে ঘটনার গভীরতর অনুসন্ধানের জন্য সোহেলের স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে নাসরিন পরে অকপটে সব স্বীকার করেন। তিনি স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী রুবেল নামের এক ব্যক্তির কাছ থেকে মাদক নিয়ে ফাঁসিয়ে স্বামীকে কারাগারে পাঠানোর পরিকল্পনা করেছিলেন বলে জানান। তবে, বিষয়টি বেরিয়ে আসায় তিনি নিজের জালে নিজেই ফেঁসে গেছেন।

এ ঘটনায় মহানগরীর চন্দ্রিমা থানায় নাসরিনের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করা হয়েছে। এছাড়া ঘটনার সঙ্গে আরও কেউ জড়িত আছে কিনা সেটিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান ডিবি এই পুলিশের কর্মকর্তা।