স্ত্রীর পেটে লাথি মেরে ‘ভ্রূণ’ হত্যা, স্বামী গ্রেফতার - Vikaspedia

স্ত্রীর পেটে লাথি মেরে ‘ভ্রূণ’ হত্যা, স্বামী গ্রেফতার

যৌতুক না পেয়ে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর পেটে লাথি মেরে গর্ভের সন্তান (ভ্রূণ) নষ্ট করার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে। গুরুতর অসুস্থ গৃহবধূ (২৪) যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

ঘটনার দুদিন পর বুধবার (৯ মার্চ) দুপুরে অভিযুক্ত স্বামী তৌহিদুর রহমানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ভুক্তভোগী গৃহবধূর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, সাত মাস আগে যশোর বাঘারপাড়ার মহিরন গ্রামের মোনাজাত ফকিরের ছেলে তৌহিদুর রহমানের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই তৌহিদ যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে শারীরিক নির্যাতন করতেন।

আড়াই মাস আগে অন্তঃসত্ত্বা হন গৃহবধূ। যৌতুক না পেয়ে ৬ মার্চ সকালে আবারও তাকে মারধর করতে থাকেন তৌহিদ। এক পর্যায়ে গৃহবধূর তলপেটে লাথি মারেন তিনি। এ সময় তার রক্তক্ষরণ শুরু হয়। তাকে প্রথমে বাঘারপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকরা যশোর জেনারেল হাসপাতালে রেফার করেন। যশোর
জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর তৌহিদ স্ত্রীকে প্রাণনাশের হুমকি দেন। গৃহবধূর স্বজনদের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ হাসপাতাল থেকে তৌহিদকে আটক করে।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আহম্মেদ তারেক শামস বলেন, জান্নাতি মঙ্গলবার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তার শরীরের অবস্থা
কিছুটা উন্নতির দিকে।

জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রুপন কুমার সরকার বলেন, স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগে যশোর জেনারেল হাসপাতাল থেকে অভিযুক্ত তৌহিদকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় বাঘারপাড়া থানায় মামলা হয়েছে।