৩০ বছর পর শিক্ষককে হত্যা করে ‘অপমানের বদলা’ নিলেন ছাত্র! - Vikaspedia

৩০ বছর পর শিক্ষককে হত্যা করে ‘অপমানের বদলা’ নিলেন ছাত্র!

গুন্তের উভেনসের বয়স এখন ৩৯। ১৯৯০ সালে তিনি প্রাইমারি স্কুলে পড়তেন।

ওই সময়ে শিক্ষক মারিয়া ভার্লিন্দেন তাকে ক্লাসে অপমান করেছিলেন। সেই অপমানের প্রতিশোধ নিয়েছেন তিন দশক পরে ২০২০ সালে। সেই ছাত্র অন্তত ১০১ বার ছুরিকাঘাত করে শিক্ষককে হত্যা করেছেন।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে এসব স্বীকার করে নিয়েছেন বেলজিয়ামের ব্রাসেলসের উভেনস। তিনি এখন কারাগারে রয়েছেন। বেলজিয়ামের প্রসিকিউটররা বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) এ তথ্য জানিয়েছেন। খবর এনডিটিভির।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২০ সালে অ্যান্টওয়ার্পের কাছে হেরেন্তালসে নিজ বাড়িতে ৫৯ বছর বয়সী ভারলিন্দেনকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়। এই হত্যাকাণ্ডের পর তদন্তে নামে বেলজিয়ান পুলিশ। তদন্তে শত শত মানুষের ডিএনএ নমুনা পরীক্ষা করা হয়। কিন্তু হত্যাকাণ্ডের কোনো কিনারা করতে পারছিল না পুলিশ।

ওই শিক্ষক হত্যার পর গণমাধ্যমে খবর বের হয় যে, তাকে অন্তত ১০১ বার ছুরিকাঘাত করা হয়। ভারলিন্দেনের মরদেহ উদ্ধারের সময় বাসার টেবিলে নগদ অর্থ ও তার পার্সটি অক্ষত অবস্থায় পাওয়া যায়। এসব দেখে পুলিশ ধারণা পায়, ঘটনাটি ডাকাতি ছিল না।

প্রসিকিউটররা বলেন, ২০২০ সালের ২০ নভেম্বর ওই শিক্ষককে হত্যা করা হয়। হত্যার ১৬ মাস পর উভেনস তার এক বন্ধুর কাছে সেই অপরাধ স্বীকার করেন। সেই বন্ধুই পরে বিষয়টি পুলিশকে জানায়। এরপর রোববার (১৩ মার্চ) গ্রেফতার করা হয় তাকে।

গ্রেফতারের পর উভেনস একটি ডিএনএ নমুনা সরবরাহ করেছে, যা হত্যার স্থানে পাওয়া চিহ্নগুলোর সঙ্গে মিলিয়ে দেখা হচ্ছে।

স্থানীয় প্রসিকিউটর কার্যালয় বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানিয়েছে, হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে উভেনস ‘বিস্তারিত ব্যাখ্যা’ দিয়েছেন, যা স্বীকারোক্তির শামিল। সেখানে তিনি জানিয়েছেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকের মন্তব্যের কারণে তিনি কষ্ট পেয়েছিলেন। তবে তিনি কী মন্তব্য করেছিলেন, সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি।

একজন প্রসিকিউটর বলেন, ‘তিনি (উভেনস) যা বলেছেন, তা তদন্তে প্রমাণ হয় কি না, সেটা খতিয়ে দেখা হবে’।

উভেনসকে মঙ্গলবার বিচারকের সামনে হাজির করা হলে একটি হত্যার অভিযোগে তাকে হেফাজতে নেওয়া হয়।

বেলজিয়ান গণমাধ্যমে বলা হয়, উভেনস একজন ধর্মপ্রাণ খ্রিস্টান। তিনি গৃহহীনদের সাহায্য করার জন্য স্থানীয়দের কাছে বেশ পরিচিত।